পরিবেশ বিপর্যয় এবং সামাজিক সচেতনতা


পরিবেশ বির্যয় রোধে সামাজিক সচেতনতা প্রয়োজন। বাংলাদেশ আজ এক কঠিন সময়ের মধ্যে আবর্তিত হচ্ছে। উন্নত বিশ্বের কার্বন নিঃসরণের ফলে সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি আমরা। এই কার্বন গ্যাস নিঃসরনের ফলে বায়ুমন্ডলীর ওজনস্তর স্ট্রাটোস্ফিয়ার, আইনোস্ফিয়ার, যা সূর্যের ক্ষতিকর আল্ট্রাভায়োলেট-রে (অতি বেগুনী রশ্মি) কে পৃথিবীতে সরাসরি আসতে বাধা দিতো তা মারাত্মকভাবে বিনষ্ট হয়ে গেছে। ফলে পৃথিবীতে তাপমাত্রা বেড়ে যাচ্ছে।

বৈশ্বিক উষ্ণতার ফলে হিমালয়, এন্টারর্কটিকার বরফ আগের চেয়ে অনেক বেশি পরিমানে গলছে, ফলে সমুদ্র পৃষ্ঠের উচ্চত্ বেড়ে যাচ্ছে ক্রমান্বয়ে। পৃথিবীর তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়া, অতিরিক্ত বরফ গলা, সমুদ্র পৃষ্ঠের উচ্চতা বেড়ে যাওয়ার ফলে পৃথিবীর অন্যান্য দেশের ক্ষতিসহ আমাদের মাতৃভূমি বাংলাদেশের এক-চতুর্থাংশ ভূমি সমুদ্র গর্ভে চলে যাবে।

পৃথিবীর খাদ্যশস্য, ফলমূল, শাকসবজি, গাছপালা সবকিছু সূর্যের আলো থেকে পাওয়া অন্যতম খাদ্যের উপাদান হচ্ছে ক্লোরোফিল। এটা ঠিকমতো না পেলে গাছপালা, খাদ্যশস্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর হবে। কিছুদিন ধরে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে প্রাকৃতিক ঘূর্ণিঝড়, তুফান, টর্নেডো, সুনামি হচ্ছে। এর অন্যতম কারণ হচ্ছে গ্রীন হাউজ ইফেক্ট। এই মহাবিপদ থেকে উত্তরনের পথ আমাদেরকেই খুঁজে বের করতে হবে।

এই মুহুর্তে পরিবেশ বিপর্যয় রোধে জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে সকলকে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। অন্যথায় এই বিস্তীর্ণ এলাকার ভূমি, সভ্যতা, সংস্কৃতি সবাই হারিয়ে যাবে সমুদ্রের অতল গভীরে।

এই সকল মহাবিপদ থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার জন্য কেবলমাত্র সামাজিকভাবে সচেতন হলে এবং সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিলে আগামী দিনের ভবিষ্যত প্রজন্মকে একটি সুন্দর-সুখী সমৃদ্ধ বাংলাদেশ উপহার দিতে পারবো।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s